ঢাকা,বাংলাদেশ

lutfor@firstaidforhealth.com

দ্রুত যোগাযোগ

এসপিরিন এর ব্যবহার, পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, উপকার, বিক্রিয়া এবং সতর্কতা

Category Tags


আমবাত কেন হয় আমবাতের কারণ ও চিকিৎসা আর্টিকেরিয়ার চিকিৎসা কান পাকা ড্রপ কান পাকা বা মধ্যকর্ণের প্রদাহ কান পাকা রোগের এন্টিবায়োটিক কান পাকা রোগের ঔষধের নাম কান পাকা রোগের ঘরোয়া চিকিৎসা কান পাকা রোগের ড্রপের নাম কানে পুঁজ হলে করনীয় কানের ড্রপ এর নাম কিডনির পাথর প্রতিরোধের উপায় ও চিকিৎসা কিডনির পাথরের লক্ষণ কোষ্ঠকাঠিন্য কি খেলে ভালো হয় কোষ্ঠকাঠিন্য কেন হয় কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার উপায় কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার ঘরোয়া উপায় ক্ষুধামন্দা কেন হয় খাদ্যে বিষক্রিয়া হলে করণীয় খাবারে অরুচি হলে করনীয় চর্ম রোগ চর্ম রোগের ঔষধের নাম চর্ম রোগের চিকিৎসা চর্ম রোগের প্রকারভেদ টনসিলাইটিস এর চিকিৎসা পিরিয়ডের ব্যথা কমানোর উপায় পুড়ে গেলে ঘরোয়া চিকিৎসা পোড়া ক্ষত শুকানোর ঔষধ পোড়ার জ্বালা কমানোর উপায় বাত ব্যাথার ঔষধের নাম বাত ব্যাথার চিকিৎসা বাত রোগের কারন বাতের ব্যথার লক্ষণ বিষক্রিয়া কত প্রকার বিষক্রিয়া কাকে বলে বিষক্রিয়ার প্রাথমিক চিকিৎসা বিষক্রিয়ার লক্ষণ বিষক্রিয়ার চিকিৎসা ও করণীয় মাসিকের ঔষধের নাম মাসিকের ব্যাথার কারন মাসিকের সময় পেটে ব্যাথার ঔষধ মিনি স্ট্রোক এর লক্ষণ হার্ট এটাক এর কারণ হার্ট এর ঔষধ হার্ট ব্লক হওয়ার লক্ষণ

Aspirin 75 এর কাজ কি

এসপিরিন অণুচক্রিকার জমাট বাধাকে কমিয়ে দিয়ে ধমনীগাত্রে থ্রম্বাস গঠিত হতে দেয়না,যেখানে থ্রম্বাসগুলো অণুচক্রিকার একত্র সংযোজন দ্বারা গঠিত হয়ে থাকে এবং যে ক্ষেত্রে রক্তজমাট বিরোধী উপাদানের কার্যকারিতা কম.এসপিরিন একটি বেদনা উপশম কারক যা মাথা ব্যাথা,ক্ষণস্থায়ী পেশীকঙ্কালে ব্যাথা এবং ঋতু কষ্টে ব্যবহূত হয়ে থাকে। এর প্রদাহরুধী বৈশিষ্ট এবং জ্বর নাশক বৈশিষ্ট রয়েছে যা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এসপিরিন এর এন্ট্ররিক কোটিং আন্তিক গোলযোগ,পরিপাকতন্ত্রের ঝিল্লির প্রদাহ সহ ক্ষত ইত্যাদি অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। 

নির্দেশনা (instructions)

ধমনীর প্রতিবন্ধকতা প্রতিষেধক হিসাবে :মায়োকার্ডিয়াল ইনফার্কশন, মায়োকার্ডিয়াল রি-ইনফার্কশন,ও বাইপাস সার্জারির পরে। 

হালকা থেকে মাঝারী ধরনের ব্যাথা :মাথা ব্যাথা,মাংসপেশির ব্যাথা,ঋতুকষ্ট ও দাঁতের ব্যাথা। অস্থিসন্ধির বাত জনিত ব্যাথা। জ্বর উপসমক হিসাবে :ঠান্ডা জ্বর ও ইনফ্লুয়েঞ্জার মত সাধারণ জ্বরে ব্যবহার্য। 

সেবন মাত্রা বা সেবন বিধি 

  • এসপিরিন ব্যাথা,প্রদাহ জনিত রোগ ও জ্বরে >৩০০ মিঃ গ্রা: ১/২টি ট্যাবলেট ৬ ঘন্টা পর পর এবং দিনে সর্বোচ্চ ৮ গ্রাম। 
  • থ্রুম্বাটিক সেরিব্রুভাস্কলার বা কার্ডিওভাসকুলার রোগে >প্রতিদিন ৩০০ মিঃ গ্রা: বা ৭৫মিঃ গ্রা: এর ৪ টি টেবলেট। 
  • মায়োকার্ডিয়াল ইনফার্কশনের পরবর্তীতে >৭৫ মিঃ গ্রা: এর ২টি (৩০০  মিঃ গ্রা:) ১ মাস সেবন। 
  • বাই-পাস্ সার্জারির পরে >প্রতিদিন ৭৫  মিঃ গ্রা: এর ১ টি টেবলেট অথবা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সেবন করতে হবে। 

পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া (Side-effects)

চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত মাত্রায় এসপিরিন খুব সাধারণ পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া সমূহের মধ্যে রয়েছে বমি বমি ভাব,বদহজম,পরিপাকতন্ত্রের ঝিল্লির প্রদাহ ক্ষত ও ফুসফুসের খিঁচুনি ইত্যাদি। 

প্রতিনির্দেশনা 

বার বছরের নিচে বাচ্চাদের রেইজ সিনড্রোম, এছাড়া দুগ্ধ্যানকারীদের,সক্রিয় পেপটিক আলসারে এসপিরিন প্রতিনির্দেশিত,হিমোফিলিয়া এবং অন্যান্ন ক্ষত থেকে রক্ত নিঃসরণের ক্ষেত্রেও ইহা প্রতিনির্দেশিত। 

সাবধানতাঃ 

হাঁপানি,অনিয়ন্ত্রিত রক্তচাপ এবং গর্ববতী মহিলাদের ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। ইহা বিশেষ ভাবে উল্লেখ্য যে ,নিদৃষ্টভাবে নির্দেশিত না হলে গর্বাবস্থার শেষ ৩ মাসে এসপিরিন ব্যাবহার উচিত নয়। কারন ইহা গর্ভে অবস্থানরত শিশুর ক্ষতি করতে পারে এবং প্রসবের সময় সমস্যা হতে পারে। 

নাকের পলিপ এবং এলার্জি রোগীদের ক্ষেত্রে ইহা সতর্কতার সাথে ব্যাবহার করা উচিত। এসপিরিন মাতৃদুগ্ধে নিঃসৃত হয়,তাই দগ্ধ্যানকারী মায়েদের ক্ষেত্রে ইহা সতর্কতার সাথে ব্যাবহার করতে হবে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *